Monday, April 15, 2024

Mudra Yojana: বাঙালি তরুণরা সরকারের এই প্রকল্পের সুযোগ নিন! মাত্র ১লক্ষ টাকা বিনিয়োগে মাসে ৪০হাজার টাকা উপার্জন হবে, বলছে সরকার নিজেই

- Advertisement -spot_imgspot_img

নিজস্ব সংবাদদাতা: যতই যাই বলা হোক বাস্তব ঘটনা হল কর্মসংস্থানের সুযোগ কমছে। চাকরির পরিমানও কমছে। সরকারি কিংবা বেসরকারি ক্ষেত্রের লক্ষ্যই হল কম নিয়োগ করে বেশি সুবিধা লাভ করা। ফলে বেকারত্ব বাড়ছে হু হু করে। এই পরিস্থিতিতে যদি কেউ ব্যবসা করে নিজের পায়ে দাঁড়াতে চান তবে তার জন্য একটি অভূতপূর্ব সুযোগ হাজির করেছে কেন্দ্রীয় সরকার। যদি আপনি মাত্র ১লক্ষ টাকা নিয়ে ব্যবসায় নামতে চান আর সত্যি মন দিয়ে ব্যবসাটা করতে চান তবে সরকারই বলছে আপনি মাস গেলে অনায়াসে ৪০হাজার টাকা উপার্জন করবেন। অবশ্যই বিষয়টি আপনার কাছে অবাস্তব মনে হবে কারন এত কম বিনিয়োগে এত লাভ হতে পারে? আসলে যদি আপনি ১লক্ষ টাকা বিনিয়োগ করেন তবে সরকার দায়িত্ব নিয়ে আপনাকে মোট পুঁজির ৮০% যোগান দেবে ব্যাঙ্ক ঋণ বাবদ এবং সরকারের হিসাব অনুযায়ী ওই পুঁজি ব্যাঙ্ককে ফিরিয়ে দিতে আপনার মাত্র ৫বছর সময় লাগবে। যদি আপনি নিজে এই ব্যবসায় নামতে চান কিংবা আপনার কোনোও নিকট জনকে এই পরামর্শটা দিতে চান তবে এই লিঙ্কটা প্রচুর শেয়ার করুন প্লিজ।

আরো খবর আপডেট মোবাইলে পেতে ক্লিক করুন এখানে

সরকারের বিভিন্ন বিভাগ হিসাব কষে দেখেছেন এই লকডাউনের মধ্যে প্রচুর ব্যবসা লোকসান করলেও খাদ্য প্রক্রিয়া করন, বেকারি শিল্প প্রচুর লাভ করেছে। আর বেকারি শিল্পের মধ্যে বিস্কুট উৎপাদন ব্যবস্থা এমনই একটি শিল্প যেখানে শুরুতেই অল্প বিনিয়োগে লাভ বেশি। বিস্কুটের ব্যবসা খুব সহজেই করা যায়। বিস্কুটের চাহিদাও সব সময়ে বেশি থাকে। দেশে লকডাউন চলাকালীন সময়ে, অন্য সব শিল্পগুলি খারাপ অবস্থায় থাকলেও, পার্লে-জি (Parle-G) বিস্কুটের ব্যবসা বেশ ভালো চলেছে। এমনকী, গত ৮২ বছরের রেকর্ড ভেঙেছে বলে জানা গিয়েছে। তাই বেকারির ব্যবসা বর্তমানে লাভদায়ক ব্যবসার বিকল্প হিসেবে মনে করা হচ্ছে। সব ভেবে চিন্তেই সরকার বিস্কুট উৎপাদন শিল্পকে মুদ্রা যোজনার আওতায় এনেছে।

কেন্দ্রীয় সরকারের মুদ্রা প্রকল্প হল এমনই একটি প্রকল্প যেখানে উদ্যোগপতিদের সাহায্য করতে এগিয়ে আসছে সরকার। যদি আপনি ন্যূনতম কিছু শর্ত পালন করেন তাহলে সহজেই এর সুবিধা পাবেন। নবীন উদ্যোগপতিদের কথা ভেবেই শিল্পের সম্ভবনা ও বাস্তবতা বিচার করে স্বয়ং সরকারের অধিকারিকরাই কিছু ব্যবসা বা শিল্পের কথা বলে দিয়েছেন যদি আপনি সেই মত ব্যবসা করেন তবে সরকারি সাহায্য পাবেন। এটা মোদি সরকারের ঘোষিত নীতি। যেমনটা বলা হয়েছে বিস্কুট শিল্পের জন্য। এক্ষেত্রে মুদ্রা প্রকল্পের সুবিধা নেওয়ার জন্য ১ লক্ষ টাকার বিনিয়োগ করতে হবে।

কেন্দ্র সরকার জানিয়েছে বিস্কুট শিল্প শুরু করার জন্য সরকার বিনিয়োগের ক্ষেত্রে ৮০ শতাংশ সাহায্য করবে। এর জন্য কেন্দ্রীয় সরকার একটি বিজ্ঞপ্তি জারি করেছে। সরকারি ওই বিজ্ঞপ্তি অনুযায়ী, ব্যবসায় সমস্ত খরচ বাদ দিলে প্রতি মাসে প্রায় ৪০ হাজার টাকার বেশি লাভ করা যাবে। সরকারের হিসাব অনুযায়ী বেকারি শিল্প স্থাপনের জন্য মোট খরচ হবে ৫.৩৬ লক্ষ টাকা। এ ক্ষেত্রে ব্যবসায়ীকে দিতে হবে মাত্র ১ লক্ষ টাকা। কেন্দ্রীয় সরকারের মুদ্রা প্রকল্পের জন্য নির্বাচিত হওয়ার পর ব্যাঙ্ক থেকে ২.৮৭ লক্ষ টাকার একটি মেয়াদি লোন ও ১.৪৯ লক্ষ টাকার ক্যাপিটাল লোন পাওয়া যাবে। ৫০০ বর্গমিটারের জায়গার প্রয়োজন রয়েছে। আপনি ভাড়ার জায়গাতেও ব্যবসা শুরু করতে পারেন। সেক্ষেত্রে জমির মালিকের সঙ্গে লিজ এগ্রিমেন্ট বা ভাড়া চুক্তি দেখাবেন।

সরকার লাভের হিসাব কষেছে এইভাবে যে সব খরচ বাদ দিয়ে বার্ষিক লাভ হতে পারে ৪ লক্ষ ২০ হাজার টাকা। কেন্দ্রীয় সরকারের এই প্রকল্পে আবেদন করার জন্য, মুদ্রা প্রকল্পের অধীনে যে কোনও ব্যাঙ্কে আবেদন করা যেতে পারে। আপনি আপনার নিকটবর্তী ব্যাঙ্ক যা কিনা মুদ্রা প্রকল্পের অধীন গিয়ে ম্যানেজারের সঙ্গে কথা বলুন। ব্যাঙ্ক আপনাকে একটি ফর্ম দেবে যেখানে নিজের সম্বন্ধে বিশদ নথি পূরণ করতে হবে। নাম, ঠিকানা, শিক্ষা, বর্তমান আয় ও লোনের পরিমাণ লিখে দিতে হবে। লোনের জন্য কোনও প্রসেসিং ফি বা গ্যারান্টি ফি দিতে হবে না। ৫ বছর সময়ের মধ্যে লোন শোধ করা যাবে। যদি ব্যাঙ্ক বেগড়বাই করে আপনি সরকারের গ্রিভেন্স সেলে সরাসরি অভিযোগ জানাতে পারেন। আসলে সরকারের অনেক সুযোগ সুবিধা আমরা জানতেই পারিনা। তাই ফের অনুরোধ করব এই লিঙ্কটি আপনার পরিচিত জনদের শেয়ার করুন। আরও বিশদ জানতে সরকারের Mudra Yojana ওয়েবসাইটে চলে যান।

 

- Advertisement -
Latest news
Related news