Wednesday, May 22, 2024

Delhi High Court: ভবানীপুর নির্বাচনের আগেই দুশ্চিন্তা কালীঘাটে , অভিষেক-রুজিরার রক্ষাকবচ খারিজ দিল্লি হাইকোর্টে! ১৬৮ কোটি টাকার তথ্য হাতে তৈরি ই.ডি

- Advertisement -spot_imgspot_img

নিজস্ব সংবাদদাতা: মঙ্গলবার বড়সড় ধাক্কা খেলেন তৃনমূল কংগ্রেসের সেকেন্ড-ইন-কমান্ড অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। এদিন এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেট (ইডি)-র সমন মামলায় তাঁর এবং তাঁর স্ত্রী রুজিরা বন্দ্যোপাধ্যায়ের রক্ষাকবচের আবেদন খারিজ করে দিয়েছে দিল্লি হাইকোর্ট। অর্থাৎ কয়লা কেলেঙ্কারি সংক্রান্ত মামলায় দিল্লি হাই কোর্ট তাঁদের অন্তর্বর্তীকালীন রক্ষাকবচ দিল না। ফলে এই মামলায় ইডির জিজ্ঞাসাবাদের জন্য দিল্লিতে হাজিরা দিতেই হচ্ছে অভিষেক-রুজিরাকে।

আরো খবর আপডেট মোবাইলে পেতে ক্লিক করুন এখানে

উল্লেখ্য এই মামলায় অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় ২দফায় ইডির দিল্লি দপ্তরে হাজিরা দিয়েছেন কিন্তু আবারও ২১ সেপ্টেম্বর ফের দিল্লিতে তলব করে ইডি। অন্যদিকে করোনার জন্য তাঁর শিশুসন্তানদের ক্ষতি হতে পারে এই কারন দেখিয়ে ৬ই সেপ্টেম্বরের ইডির ডাকে সাড়া দেননি অভিষেক জায়া। আগামী ৩০শে সেপ্টেম্বর ফের তাঁকে ডাকা হয়েছে দিল্লিতে। ইডির ওই নির্দেশের বিরুদ্ধে দিল্লি হাই কোর্টের দ্বারস্থ হয়েছিলেন সস্ত্রীক অভিষেক। মঙ্গলবার সেই আবেদন খারিজ করে দিলেন আদালত। ফলে ভাবনীপুর উপনির্বাচনের দিনই দিল্লিতে ই.ডির জেরার মুখোমুখি হতে হচ্ছে রুজিরাকে। অবশ্য আগামী ২৭ সেপ্টেম্বর এই মামলার পরবর্তী শুনানি হবে।

আদালতের কাছে অভিষেক-রুজিরা আবেদন করেছিলেন, তাঁদের বিরুদ্ধে ইডি-র সমন যেন খারিজ করা হয়। কলকাতার মামলার তদন্তে বার বার দিল্লিতে কেন তলব করা হচ্ছে, তা-ও জানতে চেয়েছিলেন। যদিও কয়লা কেলেঙ্কারির মামলা দিল্লির একটি আদালতে দায়ের করা হয়েছে এবং সেই মামলার স্বার্থেই তাঁদের দিল্লিতে ডেকে পাঠানো হচ্ছে এমন দাবি করে ইডি। দুপক্ষের আবেদন শোনার পরই মঙ্গলবার হাই কোর্ট অভিষেক এবং রুজিরার অন্তর্বর্তীকালীন রক্ষাকবচ পাওয়ার আবেদনটি খারিজ করে দেয়। অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় এবং মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় সহ তৃনমূলের শীর্ষ স্থানীয় নেতারা বলে আসছেন যে সম্পূর্ণ রাজনৈতিক প্রতিহিংসা চরিতার্থ করার লক্ষ্যেই বারবার ব্যবহার করা হচ্ছে কেন্দ্রীয় সংস্থাকে। অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় এও বলেছেন যে কোথাও যদি প্রমাণিত হয় যে ১০টাকাও নিয়েছেন তবে রাজনীতি ছেড়ে দেবেন তিনি।

ই.ডির দাবি দশ, বিশ, হাজার কিংবা লক্ষ, কোটিতে নয় শত শত কোটিতে কয়লার টাকা ঢুকেছে কলকাতার এক নেতা এবং তাঁর পরিবারের কাছে। কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থার দাবি কয়লাকান্ডে গ্রেপ্তার হওয়া বাঁকুড়ার ইন্সপেক্টর ইনচার্জ অশোক মিশ্রের হাত ধরেই কোটি কোটি টাকা পাচার হয়েছে কলকাতার এক শীর্ষ নেতা ও পরিবারের সদস্যদের কাছে। এই বিষয়ে ইডির কাছে মুখ খুলেছেন ওই পুলিশ আধিকারিক। আদালতে ইডি জানিয়েছে, ১৬৮কোটি টাকা পুলিশের হাত ধরে কলকাতায় পৌঁছেছে। ইডির বক্তব্য, হাজার হাজার কোটি টাকার মধ্যে এটি অত্যন্ত সামান্য পরিমাণ যা নিয়ে কিছু নির্দিষ্ট তথ্য আসার পরই এই জিজ্ঞাসাবাদ করতে চাওয়া হয়েছে।

দিল্লির ওই বিশেষ আদালতে ইডি জানিয়েছে, শুধুমাত্র ২০২০ সালের মে থেকে সেপ্টেম্বর মাসের মধ্যেই ৩০০ থেকে ৩৫০টি কার্টুন ভর্তি ১৬৮টি কোটি টাকা কয়লা মাফিয়াদের কাছ থেকে নিয়ে কলকাতায় পৌঁছেছিল পুলিশ। আর সেই কাজে বিশেষ ভূমিকা ছিল রাজ্যের শাসক ঘনিষ্ট পুলিশ আধিকারিক অশোক মিশ্রের। কোন গাড়িতে সেই টাকা পৌঁছেছিল তাও জানিয়েছে ইডি। ইডির ইঙ্গিত এই টাকা পাচারের পথ মসৃন করার জন্যই ডায়মন্ড হারবার থেকে মিশ্রকে বাঁকুড়ার আইসি করে নিয়ে যাওয়া হয়।

ইডি আরও জানিয়েছে, এই অশোক মিশ্রের সাথে ঘনিষ্ঠতা ছিল যুব তৃনমূলের পলাতক নেতা ও কয়লাকাণ্ডের ওপর অভিযুক্ত বিনয় মিশ্রের। উল্লেখ্য বিনয় মিশ্র বর্তমানে দেশ ছেড়েই পলাতক। যদিও এক্ষেত্রেও তৃনমূলের শীর্ষ নেতৃত্বের দাবি, ওই পুলিশ আধিকারিককে দিয়ে এসব কথা বলিয়ে নেওয়া হয়েছে। ইডির পাল্টা দাবি সমস্ত জিজ্ঞাসাবাদের ভিডিও করা হয়েছে। সব মিলিয়ে ভাবনীপুর উপনির্বাচনের প্রাক্কালে ফের সরগরম হতে চলেছে রাজ্য রাজনীতি।

- Advertisement -
Latest news
Related news