Monday, June 17, 2024

Russia Ukraine Conflicte: ইউক্রেনে মৃত্যু হল আরও এক ভারতীয় পড়ুয়ার! যুদ্ধাতঙ্কে হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু

- Advertisement -spot_imgspot_img

নিজস্ব সংবাদদাতা: মঙ্গলবারের পর বুধবার যুদ্ধ বিদ্ধস্ত ইউক্রেনে আরও এক পড়ুয়ার মৃত্যু গুনতে হল ভারতকে। জানা গেছে এক ভারতীয় পড়ুয়ার। স্ট্রোক হওয়ায় তাঁকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছিল। জানা গেছে যুদ্ধ শুরুর পরই আতঙ্কে হৃদরোগে আক্রান্ত হয়েছিলেন ২২ বছরের ওই পড়ুয়া। তাঁকে চিকিৎসার জন্য ভর্তি করা হয় আইসিইউতে।  বুধবার সেখানে মৃত্যু হয়েছে ওই ভারতীয় পড়ুয়া চন্দন জিন্দলের।

আরো খবর আপডেট মোবাইলে পেতে ক্লিক করুন এখানে

পঞ্জাবের বাসিন্দা চন্দন ভিনিৎসিয়ার ন্যাশনাল পাইরোগভ মেমোরিয়াল মেডিকেল ইউনিভার্সিটিতে পড়াশোনা করতেন। জানা গেছে দিন দুই আগে আচমকা হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে ভিনিৎসিয়ার এমার্জেন্সি হাসপাতালে ভরতি হন। সেখানেই বুধবার সকালে মৃত্যু হয় চন্দন জিন্দলের। এ নিয়ে যুদ্ধবিধ্বস্ত ইউক্রেনে গত ২ দিনে দুই ভারতীয় ছাত্রের মৃত্যু হল। মঙ্গলবার নবীন শেখরাপ্পা নামে ২১ বছরের এক মেডিক্যাল পড়ুয়ার মৃত্যু হয়েছিল। উত্তর কর্ণাটকের বাসিন্দা নবীন খাবার সংগ্ৰহ করতে গিয়ে রাশিয়ার বোমারু বিমান হারিয়ে ছিলেন। আর বুধবার পাঞ্জাবের চন্দন জিন্দল হারালেন প্রাণ।

জিন্দলের অসুস্থতার খবর পাওয়ার পর থেকেই উৎকন্ঠায় দিন কাটছিল তাঁর পরিবারের। বুধবার মৃত্যুর খবর আসার পরই কান্নায় ভেঙে পড়ে চন্দনের শোকাহত পরিবার। চন্দন জিন্দলের বাবা প্রধানমন্ত্রীকে চিঠি লিখে দ্রুত তাঁর দেহ ফেরানোর আবেদন জানিয়েছেন। সংবাদ সংস্থা সূত্রে খবর, ২২ বছরের চন্দন জিন্দল আদতে পাঞ্জাবের বারনালের বাসিন্দা। ভিনিৎসিয়ায় মেডিক্যাল পড়াশোনার জন্য গিয়েছিল ইউক্রেনে। যুদ্ধ শুরুর পর থেকেই আতঙ্কে ভুগছিলেন চন্দন। পরপর দুই পড়ুয়ার মৃত্যুতে কেন্দ্রীয় সরকারের ভূমিকা নিয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করেছে দেশের বিরোধী দলগুলি। এই মুহূর্তে উত্তরপ্রদেশের ভোট (Uttarpradesh Election) প্রচারে রয়েছেন দেশের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী (Narendra Modi)। সেখানে ভোট প্রচারে যাওয়ার আগে তাঁকে জোর বিঁধেছেন বাংলার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় (Mamata Banerjee)।

বারাণসী যাওয়ার পূর্বে বিমানবন্দরে সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে মুখ্যমন্ত্রী বললেন, প্রধানমন্ত্রী তিন মাস আগে থেকে সব জানতেন। তাহলে কেন ফিরিয়ে আনার ব্যবস্থা করেননি ছাত্রদের? ছাত্রদের তাহলে বাঙ্কারে থাকতে হত না, খাবারের জন্য কাঁদতে হত না। মৃত্যুও হত না। এটা অবহেলা। আর অবহেলাটা অপরাধ বলে মনে করেন তিনি। মুখ্যমন্ত্রীর অভিযোগ, বিজেপির মন্ত্রীরা দেখনদারি করছে।।’
এদিকে রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধের সপ্তম দিনেও তপ্ত ইউক্রেন। রাশিয়ার চাপও বাড়ছে। সরকার বদলের প্রস্তাব দিচ্ছে রাশিয়া। জেলেনস্কিকে সরিয়ে পূর্বতন প্রেসিডেন্ট ভিক্টর ইয়ানুকোভিচকে প্রেসিডেন্টের পদে আনার প্রস্তাব দেওয়া হয়েছে।

- Advertisement -
Latest news
Related news