Friday, December 8, 2023

Kharagpur Rail Workshop Fire: ফের খড়গপুর রেল ওয়ার্কশপে আগুন, ভস্মীভূত কোচ! রঙ সম্পূর্ণ হওয়ার পর কেন ওয়েল্ডিং, উঠছে প্রশ্ন

The Kharagpur workshop caught fire again. The incident took place around 11:10 a.m. in the first half of Tuesday. A coach was reportedly gutted in the blaze. Firefighters rushed to the spot. They are reportedly trying to bring the fire under control. It was initially reported that the carriage workshop was a short distance from the Karoshan workshop. The cause of the fire is being investigated. However, a source said that the coach was ready to be attached to the car after it was repaired and repainted.According to a source in the workshop, an air-conditioned or air-conditioned passenger coach used for long distance was almost 100% ready and it stood in the SBR section of Shop No. 26 adjacent to Corosion Shop. Some parts were being welded. Probably then the fire started. The workers present immediately tried to send the coach out by pushing it on a coach-carrying vehicle (Traversar). Leaving the shop in an empty space about 80 feet away.The coach was seen blazing near the New Air Break Shop. Why welding after the color is complete, the question arises।

- Advertisement -spot_imgspot_img

নিজস্ব সংবাদদাতা: ফের আগুন লাগল খড়গপুর ওয়ার্কশপে। মঙ্গলবার দিনের প্রথমার্ধে বেলা ১১টা ১০নাগাদ ঘটনাটি ঘটেছে বলে জানা গেছে।
আগুন লেগে একটি কোচ সম্পূর্ণ ভস্মীভূত হয়ে গেছে বলে খবর পাওয়া গেছে। ঘটনাস্থলে ছুটে গেছে দমকল বাহিনী। তাঁরা আগুন নিয়ন্ত্রণে আনার চেষ্টা করছেন বলে জানা গিয়েছে।

প্রাথমিকভাবে জানা গিয়েছে ক্যারেজ ওয়ার্কশপের পাশেই করোশান ওয়ার্কশপ থেকে সামান্য দূরত্বে। আগুন লাগার সম্ভাব্য কারন খুঁজে দেখা হচ্ছে। তবে একটি সূত্র জানিয়েছে কোচটির মেরামতি সম্পুর্ন হওয়ার পর রঙ করার পর তা গাড়িতে জোড়ার জন্য তৈরি ছিল।

ওয়ার্কশপের একটি সূত্র জানিয়েছে, দূরপাল্লার জন্য ব্যবহৃত একটি  যাত্রীবাহী কোচ প্রায় ১০০% তৈরি হয়ে যাওয়ার পর সেটি দাঁড়িয়েছিল করোশান শপ সংলগ্ন ২৬নম্বর শপের SBR বিভাগে। সামান্য কিছু অংশে ওয়েল্ডিং করা হচ্ছিল। সম্ভবতঃ তখনই আগুন লেগে যায়। উপস্থিত শ্রমিকরা সাথে সাথেই তাঁরা কোচটিকে একটি কোচ বহনকারী যানের (Traversar) ওপর চাপিয়ে বাইরে পাঠানোর চেষ্টা করেন। ওই শপ থেকে বেরিয়ে প্রায় ৮০ফুট দূরত্বের একটি ফাঁকা জায়গায়
গিয়ে নিউ এয়ার ব্রেক শপের কাছে দাউদাউ করে জ্বলে উঠতে দেখা যায় কোচটিকে।

স্থানীয় একটি সূত্রে জানা গেছে ওই মুহূর্তে জ্বলে ওঠা কোচটিকে বাইরে বের করতে না পারলে পুরো করোশন শপটাই জ্বলে যেতে পারত। ক্ষতির পরিমাণ দাঁড়াতো কয়েক কোটিতে। এক শ্রমিক জানিয়েছেন। কোচটির কাজ পুরো শেষ হয়ে গেছিল। এরপর সেটিকে ট্রাভারসারে চাপিয়ে লিফটিং শপে নিয়ে যাওয়ার কথা ছিল। ওখানেই কোচটি নামিয়ে মূল গাড়ির সঙ্গে যুক্ত করা হত। যে কারনে কাছাকাছি তৈরি ছিল ট্রাভারসারটি। শেষ মুহূর্তে একটি ছোটখাটো ত্রুটি দেখা যায়। সেটি ওয়েল্ডিং করার কাজ চলছিল তখনই ফুলকি থেকে দুর্ঘটনা ঘটে যায়। সদ্য রঙ করা কোচে আগুন ছড়িয়ে পড়ে।

খবর পাওয়া মাত্রই মিনিট ১৫ মধ্যে ছুটে আসে দমকলের ২টি ইঞ্জিন। প্রায় আধঘন্টার আগুন নিয়ন্ত্রণে আনা হয় বটে কিন্তু ততক্ষণে যা ক্ষতি হওয়ার হয়ে গিয়েছে। জ্বলে পুড়ে গেছে পুরো কোচটাই। ভেতরের ওয়ারিং, এসির যন্ত্রপাতি, ব্যাটারি কিছুই অবশিষ্ট নেই বলেই মনে করা হচ্ছে। গোটা ঘটনায় অভিযোগের আঙুল উঠেছে মেরামতকারি সংস্থা ও দায়িত্বপ্রাপ্ত রেল আধিকারিকের দিকেই। অভিযোগ বেসরকারি হাতে মেরামতির ব্যবস্থা চলে যাওয়ার পর থেকেই একের পর দুর্ঘটনা ঘটছে ওয়ার্কশপে। ২০২০ সালের মে মাসে ঠিক একই জায়গায় আগুন লাগার ঘটনা ঘটেছিল। এর আগেও বহুবার আগুন লেগেছে।
প্রশ্ন উঠেছে কোচের রঙ করার পর্বটি সাধিত হয় সবার শেষে। তাই রঙ করার পর কেন ওয়েল্ডিং করা হচ্ছিল? তাহলে আগের পর্বের কাজে যে ত্রুটি থেকে গেছিল তা কী দায়িত্বপ্রাপ্ত আধিকারিক খতিয়ে দেখেননি?

- Advertisement -
Latest news
Related news