Sunday, July 21, 2024

TMC Arrested: চিটফান্ডের ৩ কোটি ৭৫লক্ষ টাকা আত্মসাৎ! CBI গ্রেপ্তার করল বর্ধমান পৌর প্রসাশক, তৃনমূল নেতা প্রণব চট্টোপাধ্যায়কে

- Advertisement -spot_imgspot_img

নিজস্ব সংবাদদাতা: মাস চারেক আগে বর্ধমান পৌরসভার প্রসাশক পদে বসানো হয়েছিল তাঁকে।পূর্ব বর্ধমান তৃনমূল কংগ্রেসের সেই বর্ষীয়ান নেতা প্রণব চট্টোপাধ্যায়কে গ্রেপ্তার করল কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা বিভাগ CBI। একটি অর্থলগ্নি মামলায় যুক্ত থাকার অপরাধে তাকে গ্রেফতার করেছে সিবিআই। বর্ধমান থেকে তাঁকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে বলে সূত্রের খবর। পুরভোটের আগে পুরপ্রশাসকের গ্রেপ্তারিতে চাঞ্চল্য বর্ধমানের রাজনীতিতে।

আরো খবর আপডেট মোবাইলে পেতে ক্লিক করুন এখানে

শুক্রবার তার বাড়িতে ও অফিসে সিবিআই তল্লাশি চালায়। সিবিআই সূত্রে খবর বেসরকারি অর্থলগ্নি সংস্থার মামলায় নাম জড়িয়েছে তার নামে। অভিযোগ সন্মার্গ ওয়েলফেয়ার ট্রাস্ট থেকে ৩ কোটি ৭৫ লক্ষ টাকা নিয়েছেন তিনি। পাশাপাশি ওই সংস্থাকে বেআইনি সুবিধে পাইয়ে দেওয়ার অভিযোগ রয়েছে তার বিরুদ্ধে। এদিন বর্ধমানের বাড়ি থেকেই তৃণমূল নেতাকে গ্রেপ্তার করে কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থা। শুক্রবার প্রণব চট্টোপাধ্যায়কে আসানসোল কোর্টে তোলা হয় ।

শুক্রবার দুপুরে প্রণব চট্টোপাধ্যায়ের বর্ধমান শহরের ঢলদিঘীর অফিসে সিবিআইয়ের পাঁচ সদস্যের দল তল্লাশি চালায়। এরপরই সিবিআই সূত্রে খবর মেলে যে

চলছে তল্লাশি

সন্মার্গ চিটফান্ড মামলায় গ্রেপ্তার করা হয়েছে প্রণব চট্টোপাধ্যায়কে। যদিও পরিবারের তরফে তাঁর চিটফান্ডের সঙ্গে যুক্ত থাকার দাবি উড়িয়ে দেওয়া হয়েছে। তারা বলেন, সানমার্গ বাড়ি ভাড়া নিয়েছিল। তাদের সঙ্গে কোনও ব্যবসায়িক যোগাযোগ ছিল না।

সিবিআই অবশ্য দাবি করেছে , বর্ধমান সন্মার্গ নামে ওই চিটফান্ড সংস্থাকে বিভিন্ন সুবিধা অবৈধভাবে পাইয়ে দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়ে ধাপে ধাপে প্রায় ৩.৭৫ কোটি টাকা নিয়েছেন প্রণববাবু। সংস্থার ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টের লেনদেন পরীক্ষা করে এই তথ্য সামনে এসেছে। কেন তিনি টাকা নিয়েছিলেন তার সন্তোষজনক ব্যাখ্যা দিতে পারেননি ওই তৃণমূল নেতা। এর পরই শুক্রবার তাঁকে গ্রেফতার করেন গোয়েন্দারা। সূত্রের খবর, কখনো লাইসেন্স পাইয়ে দেওয়ার নাম করে, কখনো দোকানঘরের ব্যবস্থা করে দেওয়ার নামে টাকা নিয়েছেন প্রণববাবু।

ধৃত তৃণমূল নেতার স্ত্রী রেখা চট্টোপাধ্যায় সংবাদমাধ্যমকে জানিয়েছেন, ওই চিটফান্ড সংস্থাটি কিছুদিন আমাদের বাড়িতে ঘর ভাড়া নিয়ে কাপড়ের ব্যবসা করত। তার পর তারা নির্মাণশিল্পের সঙ্গে যুক্ত হলে আমরা সম্পর্ক ছিন্ন করি। তাদের কার্যকলাপ সম্পর্কে কিছু জানতাম না। কেন আমার স্বামীকে গ্রেপ্তার করা হল জানি না। এদিকে পুরভোটের আগে প্রণব চট্টোপাধ্যায়ের গ্রেপ্তার পূর্ব বর্ধমান তৃনমূলের অন্দরে যথেষ্ট প্রভাব ফেলতে চলেছে বলেই মনে করা হচ্ছে। তাঁকে পুরপ্রশাসক করে তাঁর নেতৃত্বেই পুরসভার লড়াই লড়তে চেয়েছিলেন রাজ্য নেতৃত্ব। তাঁর অবর্তমানে ফের গোষ্ঠীকোন্দল মাথা চাড়া দিতে পারে বর্ধমানে এমনই আশঙ্কা করা হচ্ছে।

- Advertisement -
Latest news
Related news