Sunday, July 21, 2024

Student found Dead: বাগুইহাটির পর এবার ইলামবাজার! মুক্তিপন চেয়ে ফোন আসার পরই খুন ইঞ্জিনিয়ারিং পড়ুয়া

- Advertisement -spot_imgspot_img

নিজস্ব সংবাদদাতা: আবারও মুক্তিপন দাবী করে পড়ুয়া খুন আর এবারের ঘটনা বীরভূম জেলার ইলামবাজারে। সম্প্রতি বাগুইহাটিতে খুন হয়েছে দুই মাধ্যমিক পড়ুয়া। মামাতো ও পিসতুতো দুই ভাই অতনু দে ও অভিষেক নস্কর নিখোঁজ হয়েছিলেন ২২ শে আগস্ট থেকে। তারপরই মুক্তিপন চেয়ে ফোন আসছিল পরিবারের কাছে। ৬ই সেপ্টম্বর মর্গ থেকে উদ্ধার হয় ওই দুই ছাত্রের দেহ। পুলিশের বিরদ্ধে অভিযোগ বারবার থানায় জানিয়েও লাভ হায়নি। ঘটনায় ক্লোজ করা হয়েছে বাগুইহাটি থানার ওসিকে। সেই ঘটনার রেশ কাটতে না কাটতেই ফের মুক্তিপন চাওয়ার পরই আরেক ছাত্রের খুনের ঘটনায় চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে। পুলিশ ঘটনায় একজনকে গ্রেফতার করেছে। পুলিশ সূত্রে জানা গেছে খুন হওয়া পড়ুয়ার নাম সৈয়দ সালাউদ্দিন ওরফে জয়।

আরো খবর আপডেট মোবাইলে পেতে ক্লিক করুন এখানে

পুলিশ সূত্রে জানা গেছে বিকেল থেকে নিখোঁজ ছিলেন বছর উনিশের ওই ইঞ্জিনিয়ারিং ছাত্র। রবিবার ভোরে বাড়ি থেকে বেশ কিছুটা দূরে ইলামবাজারের জঙ্গল থেকে উদ্ধার হয় নিখোঁজ ইঞ্জিনিয়ারিং পড়ুয়ার ক্ষতবিক্ষত দেহ। পুলিস তদন্ত শুরু করেছে। মৃত পরিবারের অভিযোগ, গত শনিবার বিকেলে বাড়ি থেকে বেরিয়ে ছিলেন বছর উনিশের সৈয়দ সালাউদ্দিন ওরফে জয়। তারপর আর বাড়ি ফেরেনি। বাড়ির লোকেরা তার সঙ্গে যোগাযোগ করার চেষ্টা করে হয়রান তখনই, রাত ১২টা নাগাদ সালাউদ্দিনের

মোবাইল থেকে একটা ফোন আসে। ছেলের ফোন ভেবে পরিবার যখন আসার আলো দেখছে তখন শোনা যায় একটি ভিন্ন কন্ঠ। সেই কন্ঠ সালাউদ্দিনের বাবাকে জানায় ৩০ লক্ষ টাকা মুক্তিপণ দিলে মিলবে ছেলেকে। পাশাপাশি হুমকি দেওয়া হয় পুলিশকে জানালে ছেলেকে ফিরে পাওয়া যাবে না বলে। এটি ছিল প্রথম ফোন।

পরিবার পুলিশকে জানায় মিনিট দশেকের ব্যবধানে ফের দ্বিতীয়বার ফোন করে একই হুমকি দেয় অপহরণকারীরা। সালাউদ্দিনের এবার পুলিশকে জানায় বিষয়টি। এরপরই তদন্তে নামে মল্লারপুর থানার পুলিশ। টাওয়ার লোকেশন ট্র্যাক করে ইলামবাজার থেকে ইঞ্জিনিয়ারিং পড়ুয়ার বন্ধু শেখ সলমনকে আটক করা হয়। তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করে রাত সাড়ে ৩টে নাগাদ ইলামবাজারের জঙ্গল থেকে উদ্ধার হয় ছাত্রের মৃতদেহ। ঘটনাস্থল থেকে উদ্ধার হয়েছে মদের বোতল, বিরিয়ানির প্যাকেট, চিপসের প্যাকেট। মনে করা হচ্ছে সালাউদ্দিনকে কোনও পার্টির নাম করে ডেকে নিয়ে গিয়ে এই ঘটনা ঘটানো হয়েছে। সলমনকে টানা জিজ্ঞাসাবাদ করে রহস্যের কিনারায় পৌঁছাতে চাইছে পুলিশ।

- Advertisement -
Latest news
Related news