Sunday, July 21, 2024

NIA Khejuri Blast: খেজুরির বিস্ফোরণ-কাণ্ডে তৃণমূল সভাপতি ও পঞ্চায়েত প্রধান সহ ৩জনকে গ্রেফতার করল NIA

- Advertisement -spot_imgspot_img

নিজস্ব সংবাদদাতা: এলাকার মানুষকে সন্ত্রস্ত করতেই বোমা বানানো হচ্ছিল এবং সেই বোমা বিস্ফোরণেরই নিহত হন এক ব্যক্তি এবং গুরুতর আহত হন আরও একজন। এই বোমা বানানোর পরিকল্পনা করেছিলেন তৃনমূলের এক সভাপতি তথা গ্রাম পঞ্চায়েতের প্রধান। এমনই অভিযোগ তুলে পূর্ব মেদিনীপুরের খেজুরি থেকে তৃনমূলের ওই সভাপতি কাম প্রধান সহ ৩জনকে গ্রেফতার করল জাতীয় তদন্তকারী সংস্থা বা National Investigation Agency (NIA).

আরো খবর আপডেট মোবাইলে পেতে ক্লিক করুন এখানে

সোমবার, ২৫শে এপ্রিল NIA তরফে একটি প্রেস বিবৃতিতে বলা হয়েছে গ্রেফতার হওয়া ব্যক্তিরা হলেন
আজানবাড়ি এলাকার সইদুল আলি খান, পশ্চিম ভাঙনমারি গ্রামের সেক আরিফ বিল্লা এবং পূর্ব ভাঙনমারি গ্রামের সমর শঙ্কর মন্ডল। এরা প্রত্যেকেই খেজুরি থানা এলাকার বাসিন্দা। উল্লেখ্য এঁদের মধ্যে সমর শঙ্কর মন্ডল জনকা গ্রাম পঞ্চায়েতের প্রধান তথা জনকা অঞ্চল তৃণমূলের সভাপতি এবং সেক আরিফ বিল্লা ওরফে আরাবিল্লা ও সইদুল আলি তৃনমূলের সক্রিয় কর্মী বলেই পরিচিত। জানা গেছে সোমবার সন্ধ্যায় এঁদের গ্রেফতার করেছে NIA.

বিস্ফোরণের এই ঘটনাটি ঘটেছিল গত ৩রা জানুয়ারি খেজুরি ২ ব্লকের পশ্চিম ভাঙনমারি গ্রামে তৃনমূল কর্মী কঙ্কন করনের বাড়িতে। ঘটনায় কঙ্কন করন ও অনুপ দাস নামে ২ তৃনমূল কর্মী আহত হয়েছিলেন। পরে মৃত্যু হয় অনুপ দাসের। ঘটনার শুরু করে খেজুরি থানার পুলিশ। কিন্তু বিজেপির তরফে ঘটনার তদন্ত করতে গিয়ে পুলিশ প্রকৃত ঘটনা আড়াল করতে চাইছে এমনই অভিযোগ তোলে। ঘটনার NIA তদন্তের আবেদন জানিয়ে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীকে চিঠি দেন স্থানীয় বিধায়ক শান্তনু প্রামাণিক। মামলা গড়ায় হাইকোর্টে। ২৫শে ফেব্রুয়ারি নতুন করে একটি মামলা দায়ের করে NIA. হাইকোর্টের নির্দেশে মামলার যাবতীয় নথি এনআইকে হস্তান্তর করে পুলিশ। সেই তদন্তের জেরেই এই ৩ জনকে গ্রেফতার করা হল বলে NIA জানিয়েছে।

এই গ্রেফতারকে বিজেপির প্রতিহিংসা চরিতার্থ করার রাজনীতি আখ্যা দিয়ে তৃনমূলের কাঁথি সাংগাঠনিক জেলা সভাপতি তরুণ মাইতি বলেন, ‘ সমর আমাদের দলের একজন গুরুত্বপূর্ণ নেতা।তাই তাঁকে মিথ্যে অভিযোগে জড়ানো হয়েছে। বাকিদেরকেও তাই।’ অন্যদিকে বিজেপি বিধায়ক শান্তনু প্রামাণিকের বক্তব্য, ‘ NIA নিয়ম মেনেই তদন্ত করছে। এলাকার প্রতিটি মানুষ জানে সেদিনের ঘটনার পেছনে কারা ছিল। বিধানসভা নির্বাচনে খেজুরিতে পরাজয়ের পর কারা একের পর এক ঘরবাড়ি ভাঙচুর করেছে এবং বিজেপি কর্মী সহ সাধারণ মানুষকে মারধর করেছে। মানুষের প্রতিরোধ থেকে বাঁচতেই ওই বোমা তৈরি করা হচ্ছিল। NIA আরও তদন্ত করলে অনেক রাঘব বোয়াল ধরা পড়বে।’

- Advertisement -
Latest news
Related news